বোকা কাক ও ধূর্ত শেয়াল (ভিডিও)

1640

গল্পটা তোমরা প্রায় সবাই জানো। তবু বলি।

অনেক অনেক বছর আগের কথা। কোনো এক বনের পাশে লোকালয়ে থাকতো এক বোকা কাক। কোনো এক বাড়ি থেকে সে এক টুকরো রুটি যোগাড় করে আনল। সেটি দুই ঠোঁটে চেপে ধরে উড়ে এসে বসল একটি গাছের ডালে।

Aesops_Fables_Fox_And_Crow
কাক ও শেয়াল

এমন সময় সেখান দিয়ে যাচ্ছিল এক ধূর্ত (অতি চালাক) শেয়াল। সে ছিল কিছুটা ক্ষুধার্ত। আসলে খাদ্যের খোঁজেই সে এদিক-সেদিক ঘুরে বেড়াচ্ছিল। হঠাৎ করেই তার চোখ গেল উপরে। কাকের ঠোঁটে রুটির টুকরো দেখে লোভে তার (শেয়ালের) চোখ চকচক করে উঠল। তার মাথায় দুষ্ট বুদ্ধি খেলা করতে শুরু করলে।

শেয়াল ভাবতে লাগল, এটা একটা দারুণ সুযোগ। কোনোভাবে বোকা কাককে পটিয়ে রুটির টুকরোটা হাতিয়ে নিতে পারলেই হয়। তাহলেই আপাতত পেট ঠান্ডা। তাকে আর এদিক সেটিক ছুটতে হবে না। কিন্তু কাককে বললে তো আর কাজ হবে না। সে নিজে না খেয়ে তাকে (শেয়াল) দেবে কেনো রুটির টুকরোটা। এটি পেতে হলে কাককে বোকা বানাতে হবে। আর সেটি করতে হবে চালাকীর মাধ্যমে।

হঠাৎ শেয়ালের মাথায় একটা বুদ্ধি খেলে গেল। ‘কোনোভাবে কাকটিকে কথা বলাতে পারলেই হয়। ঠোঁট ফাঁক করলেই রুটি নিচে পড়ে যাবে, সঙ্গে সঙ্গে লুফে নেবে সে’-ভাবল শেয়াল। যেই ভাবা সেই কাজ।

দুষ্টু শেয়াল তার গলাটাকে যতটা সম্ভব মিষ্টি আর মোলায়েম করে কাকের উদ্দেশ্যে বলল, আরে কাক ভাইয়া। তোমাকে আজ দারুণ সুন্দর লাগছে তো। কী উজ্জ্বল তোমার পালকগুলো। আর কেমন চকচকে। তোমাকে দেখে যে কোনো পাখি হিংসা করবে। নিশ্চয়ই তোমার গলাটাও অনেক সুন্দর আর মিষ্টি। তুমি গান গাইলে চারদিকে মিষ্টি সুর ছড়িয়ে পড়বে। সবাই তোমার গান শুনতে ছুটে আসবে। আমার তো নিজেরই তর সইছে না। ইচ্ছে করছে এখনই তোমার গান শুনি। দয়া করে একটা গান শোনাও না তুমি।

বোকা কাক শেয়ালের চালাকি ধরতে পারলো না। মিথ্যা প্রশংসায় গলে পড়ল। নিজের চেহার সৌন্দর্যের কথা শুনে একটু অহঙ্কারও হল। মনে মনে ভাবল, নিশ্চয়ই আমার গানের গলা আছে। না হলে শেয়াল বলল কেনো। এতো প্রশংসা করায় শেয়ালের প্রতি একটু মায়াও হল। ভাবল, দিই না ব্যাটাকে একটু গান শুনিয়ে। আমার মিষ্টি গলার গান শুনে মুগ্ধ হয়ে সে নিশ্চয়ই সারা বনে তা প্রচার করে বেড়াবে।

গান গাওয়ার জন্যে ঠোঁট দুটো ফাঁক করতেই রুটির টুকরোটা কাকের মুখ থেকে নিচে পড়ে গেল। সেটি দেখে শেয়ালের আনন্দ আর ধরে না। রুটির টুকরোটা ঘাসের উপর পড়া মাত্র সেটি মুখে নিয়ে নিজের পথে হাঁটতে শুরু করল ধূর্ত শেয়াল।

কাক তার বোকামি বুঝতে পারল। কিন্তু ততক্ষণে সব শেষ। রুটির টুকরো হারিয়ে নিজেকে ধিক্কার দিতে লাগলো সে।

* ঈশপের গল্প থেকে। এই গল্পটি নানাভাবে বলা হয়েছে, লেখা হয়েছে। কোথাও রুটির পরিবর্তে পনির, কোথাও বলা হয়েছে মাংসের টুকরোর কথা। তবে বাকি ঘটনা একই।

শিক্ষণীয় দিকঃ তোষামোদ বা চাটুকারিতা ভালো বিষয় নয়। এগুলোর পেছনে নানা উদ্দেশ্য থাকে। নিজের স্বার্থ হাসিল করতে মন্দ লোকেরা অন্যকে অতি প্রশংসা, তোষামোদ বা চাটুকারিতা করে। এসব থেকে সাবধান থাকা মঙ্গলজনক।

মন্তব্য